cross

কুষ্টিয়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, দিনাজপুর ও কক্সবাজারে বন্দুকযুদ্ধে ৪ জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা সবাই মাদক ব্যবসায়ী বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া লালমনিরহাটে মাদক পাচারের সময় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

বিস্তারিত পড়ুন প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ থেকে…
কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শামসুদ্দিন শ্যাম (৩৮) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৫শ পিস ইয়াবা, একটি ওয়ান শুটার গান, ২ রাউন্ড গুলি ও ২টি গুলির খোসা উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় পুলিশের তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ভেড়ামারা বাকাপুলের কাছে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

ভেড়ামারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, রাত ৩টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর আসে ভেড়ামারা বাঁকাপুল চরদামুকদিয়া এলাকায় একদল মাদক ব্যবসায়ী মাদক কেনাবেচা করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি টিম সেখানে অবস্থান নেয়।

পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের ওপর গুলি বর্ষণ করে। এতে পুলিশও পাল্টা জবাব দিলে উভয়ের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় শ্যাম নামে এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ভেড়ামারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, রাতেই মরদেহ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসা হয়। নিহত মাদক ব্যবসায়ী শ্যাম ভেড়ামারা ক্ষেমিরদিয়াড় এলাকার মৃত তোবারক মিয়ার ছেলে। তার বিরুদ্ধে ভেড়ামারা থানায় ৮টি মাদকের মামলা রয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মোল্লান এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তি মাদক ব্যবসায়ী বলে দাবি করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব-৫ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের ডেপুটি কমান্ডার আবু খায়ের জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে মাদকবিরোধী অভিযানে যায় র্যাবের একটি দল। মোল্লান এলাকায় পৌঁছলে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে মাদক ব্যবসায়ীরা। র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়।

এ সময় কয়েকজন মাদকব্যবসায়ী পালিয়ে গেলেও একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। তাকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

দিনাজপুর

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলায় দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলিতে আব্দুল করিম নামে একজন নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পুলিশ।

পার্বতীপুর থানার ওসি হাবিবুল হক প্রধান বলেন, শুক্রবার রাত ৩টার দিকে উপজেলার বেলাইচণ্ডী ইউনিয়নের বার্নিরহাট এলাকায় গোলাগুলির খবর আসে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আব্দুল করিম নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয়।

আব্দুল করিমের কাছে থাকা এক রাউন্ড গুলিসহ একটি ওয়ান শুটারগান ও বেশ কিছু ইয়াবা ও ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

কক্সবাজার

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলায় দু’দল মাদক ব্যবসায়ীর সংঘর্ষে একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

নিহত মোহাম্মদ ইসমাঈল (৩৮) চকরিয়া পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কোচপাড়ার আব্দুস সালামের ছেলে।

চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, শনিবার ভোরের দিকে উপজেলার লামা-আলীকদম সড়কের পাহাড়ি এলাকায় দুই দল মাদক ব্যবসায়ী সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় গুলিতে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী নিহত হন। তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে চকরিয়াসহ বিভিন্ন থানায় মামলা রয়েছে।

লালমনিরহাট

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রবিউল ইসলাম (৪২) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এতে এক পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছেন। আহত মাদক ব্যবসায়ীকে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে উপজেলার সিংগিমারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার রবিউল বগুড়ার ধাওয়া ফিকশান সোনারপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ সূত্র জানায়, শুক্রবার রাতে মাদক ব্যবসায়ী রবিউলসহ একটি দল মাদকের চালান পার করছেন, এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার সিংগিমারী এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা গুলি চালালে আত্মরক্ষার্থে পুলিশও দুই রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এতে রবিউল দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ হন। ঘটনাস্থল থেকে ২৫ কেজি গাঁজা জব্দ করা হয়।

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, এ ঘটনায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে।