hsc

উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হারে এবারও ছেলেদের চেয়ে এগিয়ে মেয়েরা। তবে জিপিএ-৫-এ এগিয়ে ছেলেরা।

আটটি সাধারণ বোর্ড, মাদ্রাসা এবং কারিগরি বোর্ডের অধীনে মোট ১৩ লাখ ১১ হাজার ৪৫৭ জন শিক্ষার্থী এ বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন। তাদের মধ্যে পাস করেছেন ৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮০১ জন। পাসের হার ৬৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৯ হাজার ২৬২ জন।
গত বছর এ পরীক্ষায় পাসের হার ছিল ৬৮ দশমিক ৬৪ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছিলেন ৩৭ হাজার ৭২৬ জন।

সেই হিসেবে এবার উচ্চ মাধ্যমিকে পাসের হার কমেছে ২ দশমিক ২৭ পয়েন্ট। এ ছাড়া জিপিএ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে ৮ হাজার ৪৬৪ জন।

বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। দুপুর দেড়টা থেকে ফলাফল শিক্ষা বোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং যেকোনো মোবাইল থেকে এসএমএস করেও জানা যাচ্ছে।

ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা গেছে, এ বছর দশ বোর্ডে অংশগ্রহণকারী ছাত্রীর সংখ্যা ছিল ৬ লাখ ৭ হাজার ৯০৯ জন। তাদের মধ্যে উত্তীর্ণ ছাত্রীর সংখ্যা ৪ লাখ ৩৪ হাজার ৯৫৮ জন, পাসের হার ৬৯ দশমিক ৭২ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৫ হাজার ৫৮১ জন। অন্যদিকে, অংশগ্রহণকারী ছাত্রের সংখ্যা ছিল ৬ লাখ ৮০ হাজার ৮৪৮ জন, তাদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৪ লাখ ২৩ হাজার ৮৪৩ জন, পাসের হার ৬৩ দশমিক, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২ হাজার ৬৮১ জন।

এবার এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদরাসা ও কারিগরি বোর্ডের অধীনে সারাদেশে ২ হাজার ৫৪১ টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা শুরু হয় ২ এপ্রিল। তত্ত্বীয় (লিখিত) পরীক্ষা চলে ১৩ মে পর্যন্ত। ১৪ মে ব্যবহারিক পরীক্ষা শুরু হয়ে ২৩ মে শেষ হয়।

এবার ৮ বোর্ডে পাসের হারে এগিয়ে বরিশাল বোর্ড। এ বোর্ডে পাসের হার ৭০ দশমিক ৫৫ শতাংশ, পাস করেছে ৪৩ হাজার ৮৬১ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৭০ জন।

দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাজশাহী বোর্ড। এ বোর্ডে পাসের হার ৬৬ দশমিক ৫১ শতাংশ, পাস করেছে ৯২ হাজার ৬৭৪ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ১৩৮ জন।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ঢাকা বোর্ড। পাসের হার ৬৬ দশমিক ১৩ শতাংশ, পাস করেছেন ২ লাখ ৪৪ হাজার ৫১২ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১২ হাজার ৯৩৮ জন।

গত কয়েক বছর পিছিয়ে পড়লেও এবার চতুর্থ অবস্থানে কুমিল্লা বোর্ড। পাসের হার ৬৫ দশমিক ৪২ শতাংশ, পাস করেছেন ৬৭ হাজার ৮২০ জন।

পঞ্চম অবস্থানে চট্টগ্রাম বোর্ড। পাসের হার ৬২ দশমিক ৭৩ শতাংশ, পাস করেছেন ৬০ হাজার ৭৫৫ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ হাজার ৬১৩ জন।

ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে সিলেট। এ বোর্ডে পাসের হার ৬২ দশমিক ১১ শতাংশ, পাস করেছেন ৪৪ হাজার ১২৭ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮৭৩ জন।

সপ্তম অবস্থানে যশোর বোর্ড। পাসের হার ৬০ দশমিক ৪০ শতাংশ, পাস করেছে ৬২ হাজার ২৫৮ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৮৯ জন এবং অষ্টম অবস্থানে রয়েছে দিনাজপুর বোর্ড। এ বোর্ডে পাসের হার ৬০ দশমিক ২১ শতাংশ, পাস করেছেন ৭১ হাজার ৯৫১ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ হাজার ২৯৭ জন।

মাদরাাসা বোর্ডে পাসের হার দশ বোর্ডের শীর্ষে। পাসের হার ৭৮ দশমিক ৬৭ শতাংশ। পাস করেছে ৭৬ হাজার ৯৩২ জন, তাদের মধ্যে ১ হাজার ২৪৪ জন জিপিএ-৫ পেয়েছেন।

আর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে এবার ৭৫ দশমিক ৫০ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছেন। সংখ্যা হিসাবে ৮৯ হাজার ৮৯ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৪৫৬ জন।