cro

বিশ্বকাপের ফাইনালে এসেছিল অনেক প্রত্যাশা নিয়ে। প্রথমবার ফাইনালে বিশ্বকাপ না জিতে খালি হাতেই ফিরতে হলো ইউরোপের পরাশক্তি ক্রোয়েশিয়াকে। পুরো ম্যাচেই দুর্দান্ত খেলে ফ্রান্সের বুদ্ধি, আক্রমণ এবং পরিকল্পনার কাছে হারতে হলো ক্রোয়েশিয়াকে।

ম্যাচে ফ্রান্স ৪টি গোল পেলেও তারা গোলমুখে শট নিতে পেরেছে ৬টি, ম্যাচে তাদের শট সংখ্যাও ৬টি। যেখানে তিনটি থেকেই তারা গোল করতে সমর্থ হয়। অন্যদিকে একটি গোল আসে আত্মঘাতী গোলের মাধ্যমে।
ফ্রান্সের এত কম শটের বিপরীতে ক্রোয়েশিয়া ম্যাচে ১৩টি শট নিলেও গোলমুখে ৪টি শট নিয়ে ২টি থেকে গোল করতে সক্ষম হয় পেরেসিচ-মানজুকিচরা। তাছাড়াও পুরো ম্যাচে ক্রোয়েশিয়া নিজেদের ভেতর ৫২৯টি পাস আদান-প্রদান করেছে যেখানে ফ্রান্স মাত্র ২৮৫টি পাস আদান-প্রদান করে। পুরো ম্যাচে ৬৪ শতাংশ বল নিজেদের দখলে নিয়েও গোল ব্যবধান বাড়াতে পারেনি ক্রোয়েশিয়া।

মোদ্দাকথা, পুরো ম্যাচে আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে ক্রোয়েশিয়া। কিন্তু গোলের সুযোগ একদমই কাজে লাগাতে পারেনি দালিচের দল। পক্ষান্তরে, ফ্রান্সের খেলোয়াড়েরা সুযোগ পেয়েই গোল দিয়ে দলকে বিশ্বকাপ ট্রফি এনে দেন।