cup

রাশিয়া বিশ্বকাপ ছোট হয়ে আসছে। দ্রুত এগিয়ে আসছে ১৫ জুলাই, যেদিন দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থের ২১তম আসরের ট্রফি উঠবে গর্বিত এক অধিনায়কের হাতে। তারপরই সবাই কণ্ঠ মিলিয়ে বলবেন ‘বিদায় রাশিয়া, দেখা হবে কাতারে।’

১৫ জুলাইয়ের পর অতীত হয়ে যাবে রাশিয়া বিশ্বকাপ। কয়েকদিন চলবে বিশ্বকাপ নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ। চ্যাম্পিয়ন দলের চেয়ে সে বিশ্লেষণে বেশি আসবে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি ও স্পেন। এই বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন কে হলো, তার চেয়ে বেশি আলোচনা তো ওই চার জায়ান্টের আগেভাগে বিদায় নিয়েই।

রাশিয়া বিশ্বকাপের ঘোর কাটতে না কাটতেই শুরু হয়ে যাবে পরের বিশ্বকাপ নিয়ে আলোচনা। একটি করে দিন যাবে, আর সামনে এগিয়ে আসবে কাতার বিশ্বকাপ। ঘণ্টা, দিন, সপ্তাহ, মাস ও বছর করে করে চলে আসবে ২০২২ সাল। দ্বিতীয়বারের মতো এশিয়ায় বসবে বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর।
কেমন হবে ২০২২ সালে কাতারের বিশ্বকাপ? এমন শতশত প্রশ্ন নিয়ে হাজির হবে ফুটবল পণ্ডিতরা। এ মুহূর্তে রাশিয়ায় লক্ষ লক্ষ ভীনদেশি মানুষ। যারা বিশ্বকাপ দেখতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় এ দেশে এসেছেন। এত মানুষ যখন এক ছাতার, নিচে তখন সে সুযোগ কেন ছাড়বে ২০২২ সালের আয়োজক কাতার! তারা রাশিয়ার দুই বড় শহর মস্কো ও সেন্ট পিটার্সবার্গে কাতার বিশ্বকাপ কেমন হবে তার একটা স্বাদ দেয়ার ব্যবস্থা করেছে।
শনিবারই শুরু হয়েছে রাশিয়ার এই দুই শহরে কাতার-২০২২ বিশ্বকাপের শো-ডাউন। চলবে ফাইনালের দিন, ১৫ জুলাই পর্যন্ত। রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর মস্কোভা নদীর গা-ঘেঁষে যে বিশাল পার্ক নাম তার ‘গর্কি পার্ক’। নদীর দুই পাড়ের সংযোগ ব্রিজের নিচেই ডিজিটাল বোর্ড বসিয়ে কাতারের ইতিহাস ঐতিহ্য, বিশ্বকাপ চলাকালীন অতিথিদের দর্শনীয় স্থান, ভেন্যু, সুযোগ সুবিধা, হোটেল, বিনোদনকেন্দ্রসহ নানা বিষয় প্রদর্শন করা হবে টানা ৯ দিন।
কাতার ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক কাতারের দ্য সুপ্রীম কমিটি ফর ডেলিভারী অ্যান্ড লিগ্যাসি (The Supreme Committee for Delivery & Legacy (SC)) এবং স্টেকহোল্ডাররা এই প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। প্রতিদিনই তারা কাতার বিশ্বকাপের একটা আগাম স্বাদ রাশিয়া বিশ্বকাপের দর্শকদের দেবেন বলে শনিবার জানালেন, এসসির সেক্রেটারি জেনারেল হাসান আল তাওহিদী।