shamim

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে অনেকেই নৌকার লাইসেন্স দিয়ে বেড়ায়। অথচ নিজের লাইসেন্স ঠিক নেই।

তিনি বলেন, নৌকা প্রতীক ছাড়া নির্বাচন হবে না, হবে না- বলে কেউ কেউ মাঠ গরম করে রেখেছে। এর মাধ্যমে তারাই আবার আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে নামানোর জন্য বিএনপিকে সুযোগ দিতে চায়। তাদের অনেকে আওয়ামী লীগের ব্যানারে থেকে জামায়াত-বিএনপির এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য মাঠে নেমেছে।
শনিবার ফতুল্লা স্টেডিয়াম সংলগ্ন নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল পার্কে দোয়া ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগ, সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে এ দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

আওয়ামী লীগের এই প্রভাবশালী এমপি বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের যারাই নেতৃত্বে এসেছেন শামীম ওসমানের প্রেসক্রিপশনই এসেছেন। আমি চাইলে রাজশাহীতেও মনোনয়ন দেয়ার ক্ষমতা রাখি।

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াতকে খুশি করতে আমাকে নিয়ে খেলবেন না। এই খেলার পরিণাম ভালো হবে না। আমি খেলোয়াড়, খেলতে পছন্দ করি।

শামীম ওসমান, আমি ইফতার নিয়ে রাজনীতি করে আল্লাহর সঙ্গে নাফরমানি করতে চাই না। আল্লাহর সঙ্গে মুনাফেকি করে রাজনীতি করতে চাই না। গ্লোবাল পলিটিক্স চেঞ্জ হয়ে গেছে। সামনে কঠিন সময় আসছে। আস্তিক-নাস্তিক, ডান-বাম সবাই মিলে একসঙ্গে শেখ হাসিনাকে কামড় দেবে। সেই কামড়ে আমরাই দংশিত হবো। নেত্রীর প্রশ্নে কোনো আপস হবে না। তিনি থাকলে দেশের উন্নয়ন হবে। আমি এমপি হই আর না হই এতে কিছু যায় আসে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে যেকোনোভাবেই ক্ষমতায় আনতে হবে।

ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফুল্লাহ বাদলের সভাপতিত্বে ইফতার মাহফিলে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি চন্দনশীল, গোপীনাথ দাস, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন মিয়া, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি নাজিমুদ্দিন আহমেদ, জেলা মহিলা লীগের সভানেত্রী শিরীন বেগম, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল প্রমুখ।