election

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেছেন। নির্বাচনের বছরের এই বাজেটে নির্বাচন কমিশন (ইসি) এর জন্য বরাদ্ধ বাড়ানো হয়েছে। প্রায় পৌনে পাঁচ লাখ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেটে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের জন্য পরিচালন খাতে ১৬৮৫ কোটি ২৪ লাখ টাকা ও উন্নয়ন খাতে ২১০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

নতুন অর্থবছরে বরাদ্দ পাওয়া অর্থে ছবিসহ ভোটার তালিকা হালনাগাদ, জাতীয় সংসদ নির্বাচন, বিভিন্ন স্থানীয় সরকারের সাধারণ ও উপ-নির্বাচন, উন্নতমানের স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ, জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য যাচাই অব্যাহত এবং নির্বাচনী ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত রাখার কথা রয়েছে। তবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) নিয়ে নতুন অর্থবছরে আপাতত বরাদ্দ রাখা হয়নি।

বর্তমান ইসির অধীনে ২০১৮ সালের ৩০ অক্টোবর থেকে ২০১৯ এর ২৮ জানুয়ারির মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নতুন অর্থবছরে গাজীপুর, রাজশাহী ও বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এবং সংদের পরে দেশজুড়ে উপজেলা পরিষদের নির্বাচন হবে।

এ ছাড়া পৌরসভা, ইউপি এবং সংসদ-স্থানীয় সরকারের উপ নির্বাচন রয়েছে। একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নতুন অর্থবছরে ১৮৯৫ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব রয়েছে। গত ২০১৭-১৮ অর্থবছরের তুলনায় এবছরের বরাদ্ধ প্রায় দ্বিগুণ। গত অর্থবছরে সংশোধিত বাজেট বরাদ্দ ছিল ৯৫৩ কোটি টাকা। এছাড়াও প্রস্তাবিত বরাদ্দ দশম সংসদ নির্বাচনের বাজেটের চেয়েও সাড়ে তিনশ’ কোটি টাকা বেশি।