saudi-

ইয়েমেনের সশস্ত্র হুথি বিদ্রোহী গোষ্ঠী সৌদি আরবের দক্ষিণাঞ্চলের জিজান প্রদেশে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে। মঙ্গলবার সৌদির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে এ ক্ষেপণাস্ত্র হামলার খবর দেয়া হয়েছে। তবে এতে হতাহতের কোনো তথ্য জানানো হয়নি।

এদিকে, সৌদিতে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা নিয়ে দুই ধরনের তথ্য পাওয়া গেছে। হুথি নিয়ন্ত্রিত আল-মাসিরাহ টেলিভিশন বলছে, দক্ষিণাঞ্চলের জিজান প্রদেশের কিং ফয়সাল সামরিক ঘাঁটিতে রকেট হামলা চালানো হয়েছে। এ ঘটনায় হতাহত কিংবা ক্ষয়-ক্ষতির তথ্য জানায়নি এ টেলিভিশন।
অন্যদিকে, সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আল-এখবারিয়া বলছে, মঙ্গলবার ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীদের ছোঁড়া ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দক্ষিণাঞ্চলের জিজান প্রদেশের আকাশে ধ্বংস করেছে সৌদি সামরিক বাহিনী। তবে সৌদি কর্তৃপক্ষও তাৎক্ষণিকভাবে এ ঘটনায় কোনো ক্ষয়-ক্ষতি অথবা হতাহতের তথ্য নিশ্চিত করেনি। গত কয়েকমাসে ইয়েমেন থেকে সৌদি আরবে ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট হামলা বাড়িয়েছে হুথি বিদ্রোহীরা।

ইয়েমেনে গত তিন বছরের সংঘাতে ছায়াযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী সৌদি আরব ও ইরান। ইরানি শাসকগোষ্ঠী হুথিদের অস্ত্র দিয়ে সমর্থন অব্যাহত রেখেছে বলে দাবি রিয়াদের। তবে তাদের এই দাবি নাকচ করে দিয়েছে তেহরান।

২০১৫ সালের ২৬ মার্চ থেকে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ইয়েমেনে হুথি ও অন্যান্য বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে হামলা শুরু করে। সৌদি সরকার ইয়েমেনের সাবেক প্রেসিডেন্ট আব্দুরাব্বু হাদি আল মনসুরকে ইয়েমেনের ক্ষমতায় ফের বসানোর লক্ষ্যে হুথি বিদ্রোহীদের দমনের লক্ষ্যে ওই হামলা শুরু করে।

সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের হামলায় কয়েক হাজার নারী ও শিশুসহ এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪ হাজার বেসামরিক ইয়েমেনি নিহত হয়েছেন। এছাড়া গৃহহীন হয়ে পড়েছেন দেশটির আরো লাখ লাখ মানুষ।