messi1

এক মাস আগেও মেসি ভক্তরা দ্বিধায় ছিল তাদের প্রিয় তারকা ইউরোপের সর্বোচ্চ গোলদাতা হতে পারবেন কী পারবেন না- এ নিয়ে। মেসিকে টপকে এক পর্যায়ে ওপরে উঠে যান লিভারপুলের মিশরীয় তারকা মোহামেদ সালাহ; কিন্তু শেষ পর্যন্ত সালাহ হার মানলেন ৩০ বছরের মেসির কাছে। মেসির পঞ্চমবারের মতো ইউরোপের সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়া এখন কেবল সময়ের ব্যপার মাত্র।

প্রিমিয়ার লিগের শেষ ম্যাচে গতকাল ব্রাইটনের বিপক্ষে ১ গোল নিয়ে সর্বমোট ৩২ গোল করে মৌসুম শেষ করেন সালাহ। অন্যদিকে গতকাল লেভান্তের বিপক্ষে একাদশেই ছিলেন না মেসি। তবুও ৩৪ গোল করে সবার ওপরেই রয়েছেন আর্জেন্টাইন এই সুপার স্টার। তবে গোল সংখ্যার দিক দিয়ে বেনফিকার স্ট্রাইকার হোনাস মেসির সমান ৩৪ গোল করলেও পর্তুগিজ লিগের গোল পয়েন্ট কম হওয়ায় তিনি অষ্টম স্থানে অবস্থান করছেন।
ইতালিয়ান লিগে সিরো ইমোবিলের মাত্র এক ম্যাচ বাকি রয়েছে। মেসিকে টপকে যেতে হলে তার গোল করতে হবে আরও ৫টি। ২৯ গোল নিয়ে তিনি বর্তমানে চার নম্বরে রয়েছেন। ইন্টার মিলানের বিপক্ষে ইমোবিলের ৫ গোল করা অনেকটাই দুরহ ব্যাপার হয়ে যাবে; কিন্তু মেসিকে অপেক্ষা করতেই হচ্ছে ইতালিয়ান লিগের শেষ দিন পর্যন্ত। কারণ, এটা আনুষ্ঠানিকতা।
এবারের গোল্ডেন বুটের দৌড়ে বেশ পেছনেই রয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ২৫ গোল করে ৯ নম্বর অবস্থানে রয়েছেন তিনি। তার ঝুলিতে রয়েছে চারটি গোল্ডেন বুট। অন্যদিকে মেসিও চারটি গোল্ডেন বুট জিতেছেন। মেসি যদি এবারও জিততে পারেন, তাহলে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে পাঁচটি গোল্ডেন বুট জয়ের রেকর্ড গড়বেন তিনি। ২০০৮ সাল থেকে ১২ জন বিজয়ীর ভেতর ১১ জনই লা লিগার ফুটবলার। মেসি-রোনালদো ছাড়াও ২০০৮-০৯ মৌসুমে জিতেছিলেন অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের দিয়েগো ফোরলান।

২০১৭-১৮ মৌসুমে ইউরোপিয়ান লিগগুলোয় সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকা
১। লিওনেল মেসি, বার্সেলোনা – ৬৮ পয়েন্ট (৩৪ গোল)
২। মোহামেদ সালাহ, লিভারপুল – ৬৪ পয়েন্ট (৩২ গোল)
৩। হ্যারি কেন, টটেনহ্যাম হটস্পার্স- ৬০ পয়েন্ট (৩০ গোল)
৪। সিরো ইমোবিলে, ল্যাজিও- ৫৮ পয়েন্ট (২৯ গোল)
৫। রবার্ট লেওয়ানডস্কি, বায়ার্ন মিউনিখ- ৫৮ পয়েন্ট (২৯ গোল)
৬। এডিনসন কাভানি, পিএসজি- ৫৬ পয়েন্ট (২৮ গোল)
৭। মাউরো ইকার্দি, ইন্টার মিলান- ৫৬ পয়েন্ট (২৮ গোল)
৮। হোনাস, বেনফিকা- ৫১ পয়েন্ট (৩৪ গোল)
৯। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, রিয়াল মাদ্রিদ- ৫০ পয়েন্ট (২৫ গোল)
১০। লুইস সুয়ারেজ, বার্সেলোনা- ৫০ পয়েন্ট (২৫ গোল)