police

কনস্টবল পদে নিয়োগের জন্য শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষা ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে ০৮ মার্চ পর্যন্ত পুলিশের ৮টি রেঞ্জের ৬৪টি জেলায় নির্ধারিত স্থানে অনুষ্ঠিত হবে। শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণরাই লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হলে নিম্নোক্ত বিষয়গুলো জেনে নেওয়া জরুরি।

পরীক্ষা পদ্ধতি
সাধারণত কয়েকটি ধাপে ভর্তি পরীক্ষা হয়ে থাকে। তার মধ্যে শারীরিক পরীক্ষা, লিখিত পরীক্ষা ও মৌখিক পরীক্ষা রয়েছে।
শারীরিক পরীক্ষা
শারীরিক পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত তারিখ, সময় ও স্থানে দৌড়, রোপিং ও জাম্পিং ইত্যাদিতে অংশগ্রহণ করতে হবে।

লিখিত পরীক্ষা
শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর দেড় ঘণ্টার ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। এতে ন্যূনতম ৪৫% মার্কপ্রাপ্তদের উত্তীর্ণ বলে গণ্য করা হবে।

মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষা
লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর ২০ নম্বরের মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

পরীক্ষার প্রস্তুতি
লিখিত পরীক্ষা: লিখিত পরীক্ষার জন্য বীজগণিত, পাটিগণিত, বাংলা থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ, ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদ, বাংলা ব্যাকরণ, বাংলা রচনা, মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশ ও সাম্প্রতিক বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিন। বিশেষ করে ইংরেজি ও গণিতের ওপর জোর দিন।

মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষা: মৌখিক পরীক্ষার ক্ষেত্রে সাধারণ জ্ঞানের ওপর গুরুত্ব দিন। সাধারণ জ্ঞানের বই সংগ্রহ করুন ও পড়তে শুরু করুন। নিজ জেলা ও বিভাগ সম্পর্কে ধারণা রাখুন। পাশাপাশি চোখ রাখুন সমসাময়িক বিষয়াবলীর ওপর। মৌখিক পরীক্ষা দিতে পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি পোশাকে উপস্থিত হোন।

নিয়মিত চর্চা: লিখিত, মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মেধাক্রম অনুযায়ী প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করা হবে। আপনার একটি সুন্দর ভবিষ্যৎ গড়তে একটু অধ্যবসায় তো করতেই হবে। তাই পরীক্ষার আগে, আজ থেকে শুরু করুন আপনার নিয়মিত চর্চা। এ সময় নিয়মিত চর্চা করলে অবশ্যই সুফল পাবেন।