city

বর্ষা মৌসুমে মহানগরীর জলাবদ্ধতা ঠেকাতে প্রথম ধাপে ৩৬টি খাল এবং ৩২০ কিলোমিটার ড্রেন পরিষ্কার-খননকাজ শেষ করবে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। প্রতিষ্ঠানটির প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকার ‘চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিয়ন্ত্রণকল্পে খাল পুনঃখনন, সম্প্রসারণ, সংস্কার ও উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্প বাস্তবায়নে ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকে কাজ শুরু করবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ার কোর।

প্রকল্পে নগরীর ৩৬টি খাল উদ্ধার, পরিষ্কার ও পুনঃখনন কাজ করার কথা থাকলেও তা ৫৭টিতে উন্নীত করা হয়েছে। প্রকল্পের ব্যয় ৫ হাজার ৬১৬ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকা করা হচ্ছে।

সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, ‘জলাবদ্ধতা নিরসনে সিডিএর নেওয়া বৃহৎ প্রকল্প বাস্তবায়নে সেনাবাহিনী চলতি মাসের মধ্যেই কাজ শুরু করবে। প্রকল্পের বিষয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় আমাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছে। প্রকল্পে কিছুটা পরিবর্তন ও সংশোধন হওয়ায় ব্যয় বেড়ে প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকা করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে বর্ষার আগে নগরবাসী যাতে কিছুটা হলেও জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি পায়, সেই লক্ষ্যে ৫৭টি খালের মধ্যে ৩৬টি খাল পরিষ্কার-খনন, ৩২০ কিলোমিটার ড্রেন পরিষ্কার ও খননকাজ শুরু করা হবে। এ ছাড়াও প্রথম দফায় ৫টি খালের মুখে স্লুইসগেট, পাম্প হাউস নির্মাণ, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি কেনা হবে। পাশাপাশি নির্মাণকাজের জন্য কনসালটেন্ট নিয়োগ করা হবে।’

এর আগে ২০১৬ সালের ৯ আগস্ট জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) শর্ত সাপেক্ষে ৫ হাজার ৬১৬ কোটি টাকা এ প্রকল্পের জন্য অনুমোদন দেন। পরবর্তীতে একনেকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, প্রকল্পটি বাস্তবায়নে স্থানীয় সরকার মন্ত্রীকে আহ্বায়ক, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী এবং পানিসম্পদ মন্ত্রীকে সদস্য করে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক), সিডিএ, চট্টগ্রাম ওয়াসা, পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রতিনিধি নিয়ে একটি টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হয়।

টেকনিক্যাল কমিটির প্রতিনিধিরা বেশ কয়েকবার সভা করে জলাবদ্ধতা নিরসনে বেশ কিছু সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নেন।