qantara

সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মতো একজন জঘন্য যুদ্ধাপরাধীর মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব এনে বিএনপি আবারো প্রমাণ করেছে তারা স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি।
যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর জন্য বিএনপির নির্বাহী কমিটির বৈঠকে শোক প্রস্তাবের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচীতে সুচিন্তা বাংলাদেশর যুগ্ম আহ্বায়ক ও সুচিন্তা বাংলাদেশের ডিরেক্টর কানতারা কে খান একথা বলেন। ‘আমরা নাগরিক সমাজের পক্ষে’ ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

কানতারা কে খান আরো বলেন, যারা রাজাকারের জন্য শোক প্রস্তাব আনতে পারে তারা বাংলাদেশের পক্ষের শক্তি নয়। এমনকি তারা বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদেও বিশ্বাস করে না। তাই আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি তাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে এদের মোকাবেলা করতে হবে।
“জয়বাংলা” হৃদয়ে ধারণ করে এগিয়ে যেতে হবে বলে মনে করেন কানতারা কে খান । তিনি মনে করেন, জয়বাংলা শুধু একটা স্লোগান নয়, ১৯৭১-এ লাখো বাঙ্গালীর শক্তি ছিলো জয়বাংলা।
সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিকালে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা মানববন্ধন করেন। এতে অন্যান্যর মধ্যে ৭১ এর ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির, ফজিলাতুনেছা বাপ্পী এমপি, জাতীয় প্রেসক্লাব সভাপতি শফিকুর রহমান, ডা. নুজহাত চৌধুরী, রোকেয়া প্রাচী, ড. আশিকুর রহমান, সুচিন্তা বাংলাদেশর যুগ্ম আহ্বায়ক ও সুচিন্তা বাংলাদেশের ডিরেক্টর কানতারা কে খান, ব্যারিস্টার নাজিয়া চৌধুরী, শাহ আলী ফরহাদ, ফয়জুল হক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

মানববন্ধন সঞ্চালনা করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক মোহাম্মদ এ আরাফাত।