১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে বিপুলসংখ্যক নারী অংশ নিলেও অদ্যাবদি তারা যথাযথ সম্মান পাননি। এমনকি তালিকাও প্রকাশ করা হয়নি। তখনকার রক্ষণশীল সমাজে মায়ের ভাষার জন্য মৃত্যুভয় উপেক্ষা করে রাজপথে নেমে আসা বীর নারীদের প্রতি এমন উদাসিনতায় মর্মাহত ভাষাসৈনিকরা।

ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন, তেভাগা আন্দোলনের মতো এ অঞ্চলের অনেক আন্দোলনেই নারীরা অংশ নিলেও ১৯৫২ এর ভাষা আন্দোলনে তা সংখ্যা ছাড়ায় অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে।

নারীরা বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে শুধু প্রচার-প্রচারণাতেই যোগ দেননি, ২১ ফেব্রুয়ারির ১৪৪ ধারা ভাঙ্গার ক্ষেত্রেও তারা ছিলেন সামনের কাতারে।

তুলনামূলক রক্ষণশীল সময়ের বিধিনিষেধকে পাশ কাটিয়ে ভাষা আন্দোলনের উত্তাল সময়ে মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়াতে যেসব নারী কুণ্ঠাবোধ করেননি তাদের নামের তালিকা তৈরি হয়নি। এনিয়ে হতাশ নারী ভাষা সৈনিকরা।

১৯৫২ এর ভাষা আন্দোলনের গৌরবের রেশ ছিল ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধেও পুরুষের সঙ্গে সমানতালে লড়ে নারী মুক্তিযোদ্ধারা দেশকে স্বাধীন করায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। সেই নারীদের মর্যাদা যখন ক্ষুন্ন হয় তখন প্রাণ কেঁদে ওঠে ৫২ এর ভাষা আন্দোলনের বীর সৈনিকদের।