suzana-

শোবিজে যখন একের পর এক তারকা সংসার ভাঙনের মন খারাপি ছড়াচ্ছিলেন তখন লাক্স তারকা বিন্দু হয়ে উঠছিলেন সাফল্যের উদাহরণ। এমনই সময়ে হঠাৎ উড়ে এলো বিন্দুর সংসার ভাঙনের খবর। শোবিজের গুঞ্জন দাবি করে বেশ কিছু অনলাইন গণমাধ্যমের খবর- ‘স্বামীর পরকীয়ার জের ধরে ভেঙে যাচ্ছে বিন্দুর সংসার’।

সেইসঙ্গে জানা গেল চমকে উঠার মতোই আরও এক খবর। সেটি হলো বিন্দুর স্বামী পরকীয়ায় মজেছেন সুন্দরী মডেল ও অভিনেত্রী সুজানার সঙ্গে। স্বামীর সঙ্গে তারই পুরনো সহকর্মী সুজানার অনৈতিক সম্পর্ক মেনে নিতে পারছেন না বিন্দু। তাই দীর্ঘদিন ধরে আলাদা রয়েছেন তিনি। বাকি কেবল আনুষ্ঠানিক ডিভোর্স ঘোষণার।
তবে এর সত্যতা মেলেনি কোথাও। বিন্দুর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তার পুরনো ফোন নাম্বার বন্ধ পাওয়া যায়। তার কাছের মানুষরা নিশ্চিত করলেন, স্বামী সংসার নিয়ে সুখেই আছেন বিন্দু। ভাঙনের খবর স্রেফ গুজব।

সংসার ভাঙার পেছনে তৃতীয় ব্যক্তি হিসেবে নিজের নাম আসায় ক্ষোভ প্রকাশ করলেন সুজানা। তিনি বর্তমানে রয়েছেন দেশের বাইরে। সেখান থেকে জানালেন, ‘বিন্দু আমার খুব পছন্দের একজন। তার সঙ্গে আমার সম্পর্কটাও দারুণ। কারা এইসব ফালতু কথা ছড়িয়ে মেয়েটার সুখের সংসার নিয়ে অপপ্রচার চালায়? আর আমাকে কেন হাস্যকরভাবে এখানে জড়ানো হলো? দেশ থেকে আমাকে অনেকেই বেশ কিছু গণমাধ্যমের নিউজের লিংক ইনবক্সে শেয়ার করেছেন। সেগুলো দেখে আমি শুধু কষ্টই পাইনি। হতাশও হয়েছি। এ কেমন সাংবাদিকতা? কোনো দায়িত্ববোধ নেই সংবাদ পরিবেশনে? আমার উপর একটি সংসার ভাঙার দায় চাপানো হচ্ছে অথচ আমার কোনো বক্তব্য নেই। বিন্দু কিংবা তার পরিবারেরও কোনো বক্তব্য নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি খুবই বিরক্ত গতকাল থেকে। কোনো হিট ইস্যু না পেয়ে বিন্দুর সংসারকে টার্গেট করেছে কিছু বাজে লোক। আর সেখানে রঙ মাখাতে আমার নামটি জুড়ে দেয়া হয়েছে। আমি এই সপ্তাহেই দেশে আসবো। এসে এই বিষয় নিয়ে প্রকাশ্যে কথা বলবো আমার সাংবাদিক ভাই-বন্ধুদের সঙ্গে।’

এত নাম থাকতে আপনার নাম কেন এই খবরে জড়ালো এমন প্রশ্নের জবাবে সুজানা বলেন, ‘সেটা আমার চেয়ে ভালো বলতে পারবেন যারা আড্ডার টেবিলে, সংবাদমাধ্যমে এইসব মুখরোচক গল্প ছড়াচ্ছেন।’ বিন্দুর সংসার নিয়ে কোনো আপডেট তথ্য আপনি জানেন? জবাবে সুজানা বলেন, ‘জানার কোনো সুযোগ নেই। বিন্দু অনেকদিন মিডিয়াতে সক্রিয় না। তার অনেক কাছের মানুষেরাও তার খবর জানে না। আমি কীভাবে বলবো। আমি তার শুভাকাংখী হিসেবে প্রত্যাশা করছি ওর সংসার ভালো আছে, ও সুখে আছে।’

সুজানা জানালেন, বিন্দুরও উচিত এইসব গুজবকে যারা প্রচার করছে তাদের বিরুদ্ধে কথা বলা।

প্রসঙ্গত, আফসান আরা বিন্দু ২০০৬ সালের লাক্স সুপারস্টার প্রতিযোগিতার প্রথম রানার আপ হিসেবে শোবিজে তার পথচলা শুরু। এরপর তিনি কাজ করে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন নাটক-টেলিছবি ও বিজ্ঞাপনে। পাশাপাশি শাকিব খান ও ইমনের বিপরীতে দুটি চলচ্চিত্রে কাজ করে তিনি প্রশংসিত হয়েছেন।

ক্যারিয়ার যখন সাফল্যের মধ্য গগনে তখনই হঠাৎ আড়ালে চলে গেলেন গালে টোল পড়া মিষ্টি হাসির অভিনেত্রী বিন্দু। কারণ, বিয়ে করে সংসারে মনযোগ দিয়েছেন তিনি। ২০১৪ সালে ভালোবেসে বিন্দু বিয়ে করেন আসিফ অ্যাপারেলসের কর্ণধার আসিফ সালাহউদ্দিন মালিককে। বিয়ের পর সংসারী হতে মিডিয়াকে পাশ কাটিয়ে নিভৃতচারী হতে শুরু করেন বিন্দু।