JILlN0

আবহমান কাল ধরে সবার কাছে একটি মশলা হিসেবে পরিচিত হয়ে আসছে তেজপাতা। শুধু মশলা হিসেবেই নয়, এটি একটি রোগ নিরাময়কারী ও স্বাস্থ্যকর ভেষজ পাতা হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

সাধারণত শীতকালে দেখা দেয় জ্বর সর্দীসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা। আয়ুর্বেদ জানাচ্ছে, কেবল তেজপাতা খাওয়াতেই নয়, পোড়ালেও কিন্তু অনেক উপকার পাওয়া যায়। একটি হেলথ ওয়েবসাইট ‘হেলদি ফুড ট্রিকস’-এ সম্প্রতি বিশদে প্রকাশিত হয়েছে তেজপাতা বিষয়ক তথ্য।

সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে, একটি ছাইদানিতে কয়েকটি তেজপাতা নিয়ে ১০ মিনিট ধরে পোড়ালের ফলে এতে পাতা যেমন পুড়বে, তেমনই পুড়বে এর মধ্যে থাকা অপরিহার্য তৈল উপাদানও। তেজপাতা পোড়ালে ধীরে ধীরে ঘরে সুগন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। বিশেষ করে শীতকালে এই ভেষজ গন্ধ মনকে সতেজ করে তোলে। এটি মন-শরীরকে যেমন প্রশমিত করতে সাহায্য করে, তেমনই এতে মানসিক চাপ ও উদ্বেগও কমবে।

ইউরোপীয় বিভিন্ন শাস্ত্রে বলা হয়েছে, প্রাচীন গ্রিক ও রোমানরা তেজপাতাকে পবিত্র ওষুধ বলত। বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে তেজপাতাকে অপরিহার্য বলে ধরা হয়। উপমহাদেশে এই পাতাকে মসলা হিসেবে ব্যবহার করেন। রান্নার স্বাদ বাড়াতে ও সুগন্ধ আনতে এর ব্যবহার করা হয়।

বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, তেজপাতার মধ্যে রয়েছে পিনেনে ও সাইনিয়ল নামে দুটি উপাদান। রয়েছে তৈল উপাদান উপাদান। এর মধ্যে রয়েছে সাইকো-অ্যাকটিভ পদার্থ। পাশাপাশি, এতে রয়েছে জীবানুনাশক, ডিওরেটিক, সিডেটিভ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান। এগুলো স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। এটি মনমেজাজকে ভাল করে, সঙ্গে তেজপাতা পাকস্থলীর ফ্লু নিরাময়েও সাহায্য করে। তেজপাতার এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে ম্যাসাজ করলে মাথাব্যথা কমে।