du

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সরকারি সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে ফের বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায় না হওয়ায় আগামীকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কাজের ‘রেজিস্ট্রার ভবনের’ সকল কার্যক্রম বন্ধ করার আহ্বান জানায় শিক্ষার্থীরা।

রোববার (১৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে এই বিক্ষোভ শুরু হয়। ঘণ্টাখানেক অবস্থানের পর শিক্ষার্থীরা মিছিল সহকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে অবস্থান নেয়। দাবি আদায় না হওয়ায় বেলা ৩টা পযন্ত রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান করে তারা। বিকেল ৩টায় নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক মশিউর রহমান সাদিক।

এর আগে শিক্ষার্থীরা উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামানের কাছে স্মারকলিপি দেয় । উপাচার্য অধিভুক্তি বাতিলের ব্যাপারে কোনো কথা না বলায় ফের আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। উপাচার্যের সাথে দেখা করলে তিনি শিক্ষার্থীদের বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস শুধু এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের। অধিভুক্তদের ক্যাম্পাস এটা নয়। সামনে থেকে তাদের ব্যাংকের টাকা এবং ভর্তির যাবতীয় ব্যবস্থা তাদের ক্যাম্পাসে হবে। এখানে হবে না।

এ সময় তারা সাত কলেজের অধিভুক্ত বাতিলের দাবিতে সাত কলেজ মানি না, অবিলম্বে বাতিল কর, আশ্বাস চলবে না, রাখতে ঢাবির সম্মান, সাত কলেজ বেমানানসহ বিভিন্ন স্লোগান দেয়।

আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক আহমেদ মুনীর তায়িফ বলেন, আমাদের শিক্ষক সংকট রয়েছে। নতুন করে দেড় লাখ শিক্ষার্থী আসায় তাদের সিলেবাস, পরীক্ষা খাতা মূল্যায়ন নিয়ে শিক্ষকরা ব্যস্ত থাকায় আমাদের শিক্ষার মান কমার আশংকা করছি। তাছাড়াও রেজিস্ট্রার ভবনে শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনের তুলনায় কর্মকর্তা–কর্মচারী অনেক কম। নতুন করে দেড় লাখ শিক্ষার্থীর কাজ করতে গিয়ে আমরা ঠিকভাবে সেবা নিতে পারছি না। তাছাড়া ও বিশ্ববিদ্যালয়ের একটা পরিবেশ রয়েছে। কিন্তু হঠাৎ ক্যাম্পাসে এত লোক আসায় আমাদের হাঁটাচলায় সমস্যা হচ্ছে। যতক্ষণ না সাত কলেজের অধিভুক্ততা বাতিল হবে, ততক্ষণ আন্দোলন করে যাবো।

বিক্ষোভকারীরা সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের কারণে ঢাবি শিক্ষার্থীদের পরিচয় সঙ্কটে পড়তে হচ্ছে দাবি করে অবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয়টি থেকে সরকারি সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন বলে ঘোষণা দেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবারও তারা একই বিষয় নিয়ে বিক্ষোভ করেন।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হয়।