Soumya Sarkar 1_1

দুই ভাগ হয়ে বাংলাদেশ দলের প্রস্তুতি ম্যাচ চলছিল তখন। এর মাঝে সৌম্য সরকার ও তাসকিন আহমেদকে মাঠের এক কোণে দীর্ঘক্ষণ কি যেন বোঝাচ্ছিলেন টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। সৌম্য যে দল থেকে বাদ পড়তে যাচ্ছেন তা তখনই বুঝে নিয়েছিলেন সবাই। আর হলোও তাই। আসন্ন ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচের দলে নেই সৌম্য। তবে এখনই তাকে পুরোপুরি বাদের তালিকায় ফেলেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। মানসিক স্থিরতা ফিরে পেতে তাকে ‘ব্রেক’ দেওয়া হয়েছে বলে জানালেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডের জন্য রোববার ১৬ সদস্যের দল ঘোষণা করা হয়েছে। তাতে নেই সৌম্য। নির্বাচকদের কথায় বোঝা যায়, ঘরোয়া সিরিজে আপাতত এই ১৬ জনকেই নিয়েই ভাবার ইচ্ছে তাদের। সৌম্যর বাদ পড়া বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল বললেন, ‘সবকিছু মিলিয়ে তাকে (সৌম্য) একটা ব্রেক দেওয়ার চিন্তা ভাবনা করেছি। মানসিকভাবে নিজেকে ফিরে পাওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক ম্যাচে সৌম্যর কিছুটা ব্রেক প্রয়োজন। ধারাবাহিকতা রক্ষা করা খুব কঠিন জিনিস। একবার যদি ব্রেক ডাউন হয় তাহলে এটা ফিরে পাওয়া খুব কঠিন। ও যথেষ্ট প্রতিভাবান খেলোয়াড়। বেশ কিছু ভালো ইনিংস দেশের জন্য খেলেছে। আমি আশা করি খুব দ্রুত সে কামব্যাক করতে পারবে।’

তবে সৌম্য নিজেকে কিছুটা দুর্ভাগা বলতেই পারেন। কারণ বিগ থ্রি -তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহীমের পর গত বছর সবচেয়ে বেশি রান করেছিলেন সৌম্যই। তারপরও তাকেই পড়তে হলো বাদ। তিন সংস্করণ মিলে ৯২৯ রান করেছিলেন ২০১৭ সালে। তবে টি-টুয়েন্টি ও টেস্টের মতো ততটা ধারাবাহিক ছিলেন না ওয়ানডেতে। ১২টি ওয়ানডে ম্যাচে ১১ ইনিংস ব্যাট করে ২৪.৩০ গড়ে করেছিলেন ২৪৩ রান। আর সেটাই কাল হয়েছে ২৪ বছরের বাঁহাতি ওপেনার সৌম্যর জন্য।

তবে প্রথম দুই ওয়ানডের দলে বাদ পড়া মানেই যে একেবারে দৃষ্টির বাইরে চলে যাওয়া তা যে নয় সেটাও জানান নান্নু। ফর্মে ফেরার সৌম্যকে জন্য সাময়িক ‘ব্রেক’ বা বিশ্রাম দিয়েছেন বলে জানালেন প্রধান নির্বাচক, ‘সৌম্য সব সংস্করণেই কিছুদিন ধরে খেলে যাচ্ছে। ওর প্রতিভা নিয়ে কোনরকম প্রশ্ন নেই। যেহেতু ধারাবাহিকতার মধ্যে নেই, এজন্য আমরা একটু ব্রেক দিয়েছি। সৌম্য আমাদের পরিকল্পনার মধ্যেই আছে। যেহেতু আমাদের পুলভুক্ত খেলোয়াড়, আমরা আশা করি ও আবার ফর্মে ফিরে আসবে।’

দিকে সৌম্যর জায়গায় দীর্ঘদিন পর দলে ঢুকেছেন আরেক ওপেনার এনামুল হক বিজয়। মুমিনুল হকের মতো অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপেই শেষ খেলেছিলেন তিনি। যদিও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ইনজুরিতে পড়ে বাদ হন তিনি। এরপর তার জায়গায় নেমে দারুণ খেলতে থাকেন সৌম্য সরকার। ফলে পরবর্তীতে ইনজুরি থেকে ফিরলেও আর জায়গা হয়নি বিজয়ের। তবে এবার সৌম্যর অফ ফর্মের কারণেই ঘরোয়া ক্রিকেটের ধারাবাহিক পারফর্মার বিজয় ফিরলেন জাতীয় দলে। সেই ২০১৫ সালের পর।