dhaksu

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাম্প্রতিক সময়ের আলোচিত নাম ওয়ালিদ আশরাফ। বিশ্ববিদ্যালয়টির ছাত্র সংসদ ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে ১৫ দিন ধরে অনশন করেছিলেন তিনি। উপাচার্যের আশ্বাসে সেইসময় অনশন ভাঙলেও থেমে নেই তার আন্দোলন। আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের রাশিয়ান ভাষার এই শিক্ষার্থী এখন প্রস্তুতি নিচ্ছেন ডাকসু নির্বাচনের জন্য ‘গণসংযোগ’ চালানোর। বৃহস্পতিবার এমনটাই জানালেন ওয়ালিদ।

গতবছরের ২৫ নভেম্বর বিকেল ৫টা থেকে ৯ ডিসেম্বর পর্যতন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতি চিরন্তন প্রাঙ্গণে ১৫ দিন অনশন পালন করেছিলেন। সেই সময় তাকে শারীরিক দুর্বলতার কারণে ঢাকা মেডিকেলে ৩ বার ভর্তি করা হয়েছিল। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান পানি খাওয়ানোর মাধ্যমে তার অনশন ভাঙেন। ডাকসু নির্বাচন দেবেন বলে আশ্বাস দেন।

সেই সময় ওয়ালিদ আশরাফ এই আন্দোলনের ব্যাপারে বাম ছাত্র সংগঠন আগেই সমর্থন দিয়েছিল। এই আন্দোলনের সমর্থনে তারা সংবাদ সম্মেলন, মিছিল, মানববন্ধন করেন। এরপর ছাত্রলীগ এবং ছাত্রদলও তাদের সমর্থন দিয়েছিল।

গণসংযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ওয়ালিদ আশরাফ বলেন, ভিসি স্যার আশ্বাসে আমি ১ তারিখ পর্যন্ত অপেক্ষা করি। কিন্তু ডাকসু নির্বাচনের ব্যাপারে কোনো অগ্রগতি দেখছি না। ইতোমধ্যে আমি ডাকসু নিয়ে লেখালেখি শুরু করেছি। ১ জানুয়ারি থেকে মাঠ পর্যায়ে কাজও শুরু করছি।

রেজিস্ট্রার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচনের আগে ডাকসু নির্বাচনের জন্য কথা বলার এখনই সময় বলে এই শিক্ষার্থী মন্তব্য করেন।
এখন অনশন করছি না উল্লেখ করে এই শিক্ষার্থী বলেন, আমি গতকাল রাত থেকে এখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতি চিরন্তনে আছি। তবে অনশন করছি না। এই জায়গাকে কেন্দ্র করে জনসংযোগ চালিয়ে যাবো। সাইকেলটাকে ক্যাম্পেইনের ম্যানিফেস্টো হিসেবে কাজ করছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ নির্বাচনসাইকেলটাকে ক্যাম্পেইনের ম্যানিফেস্টো হিসেবে কাজ করছি।

উল্লেখ্য, গত ২৮ বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয় ডাকসু নির্বাচন হচ্ছে না। অনেকবার উদ্যোগ নেওয়ার পর রাজনৈতিক বাধায় এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি।