salman

আমির হোসেন সোহেল।বয়স ৩৫ বছর। অস্ট্রেলিয়ায় পড়েছেন মাস কমিউনিকেশনে। দেশে ফিরে গড়ছেন শিল্পপ্রতিষ্ঠান। লম্বা, দীর্ঘদেহী, শ্মশ্রুমণ্ডিত। হাসি তার মুখে লেগেই থাকে। নিজেদের কাচ কারখানা বানিয়েছেন নির্ধারিত সময়ের কয়েক মাস আগে। তার এই কীর্তি দেখে দুবাই থেকে বিশাল অঙ্কের বেতনে চাকরির প্রস্তাবও আসে। বিনয়ের সঙ্গে সেটি ফিরিয়ে দেন দেশের মায়ায়।

এখন বানাচ্ছেন ১৫শ কোটি টাকার স্টিল কারখানা। সবই করছেন নিখুঁতভাবে সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে। ২০১৯ সাল নাগাদ ফেনীতে অবস্থিত এ কারখানা উৎপাদনে যাবে। ঢেউটিন, স্টিল স্ট্রাকচারের বিভিন্ন উপাদান, এমনকি রেফ্রিজারেটরের লোহার পাতসহ বিভিন্ন লৌহজাত আধুনিক সরঞ্জামও তৈরি করবে।

আগামী ২০ বছর পরে কি ধরনের লৌহজাত সামগ্রীর প্রয়োজন হতে পারে এদেশে, সেই আগাম ধারণার ভিত্তিতেই কারখানাটির উৎপাদন ব্যবস্থাপনা সাজানো হচ্ছে। তার সঙ্গে সার্বক্ষণিকভাবে পুরো বিষয়টি মনিটরিং করছেন বড় ভাই ইকবাল হোসেন চৌধুরী। দেশের নামকরা শিল্পপতি সুফী মিজানুর রহমানের গড়া পিএইচপি ফ্যামেলির পরিচালক এরা দুই ভাই।

সাত ভাই এক বোনের মধ্যে আমির হোসেন সোহেল হলেন ষষ্ঠ। সাত ভাই পারিবারিক ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত। একেক ভাইয়ের একেক গুণ আর বৈশিষ্ট্য। কিন্তু আমির হোসেন সোহেলের গুণটা একটু অন্যরকমের। ব্যতিক্রমও বটে।

তথ্য-প্রযুক্তির এই যুগে তিনি মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন না বললেই চলে। মাসে হয়তো কোনো একদিন হঠাৎ তাকে মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়। কিন্তু এই কানেকটিভিটির যুগে সোহেলকে মোবাইল ফোনে পাওয়া না গেলেও তার কোনো ব্যবসা কিংবা কাজ এক মুহূর্তের জন্যও থেমে থাকে না। যে কোনো কিছু মনে রাখার অসাধারণ স্মরণশক্তি তার।

স্মরণশক্তির এসব গল্প শোনা যাক তার মুখেই, ‘আমেরিকা, ইংল্যান্ড, চীন, ভারত, ভিয়েতনামসহ পৃথিবীর ১৭টি দেশ থেকে ৪৪ ধরনের কাঁচামাল আমদানি করতে হয়। প্রত্যেকটি কাঁচামালের জন্য কমপক্ষে পাঁচজন করে ২০০ জন বিদেশি সরবরাহকারী রয়েছে।

এদের প্রত্যেকের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ আছে। মোবাইল ফোন আমি তেমন ব্যবহার না করলেও আমার সাপ্লাই চেইনে সমস্যা বা সংকট তৈরি হয়নি কখনো।’ কীভাবে ফোন ছাড়া এ কাজ আপনি করেন- এই প্রশ্নের জবাবে নিরুত্তর থেকে কেবলই হাসেন সোহেল।

সোহেল সম্পর্কে তার বড় ভাই ইকবাল হোসেন চৌধুরী বলেন, সোহেল খুবই সুসংগঠিতভাবে কাজ করে। মোবাইল ফোন তেমন ব্যবহার না করলেও ই-মেইলের মাধ্যমে অধিকাংশ কাজ শেষ করার দক্ষতা রয়েছে। ওর সবচেয়ে বড় গুণ হলো স্মরণশক্তি। কোন বাগানে কয়টি মেহগনি গাছ আর কয়টি খেজুর গাছ রয়েছে, সেটি অনায়াসে মুখস্ত বলে দিতে পারবে সে।