sur

লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে জমা দেয়া পদত্যাগপত্র স্থগিত করেছেন সাদ আল হারিরি। এছাড়া দেশটির প্রেসিডেন্ট মাইকেল আউনের সঙ্গে লেবানন রক্ষা এবং নিরাপত্তা বজায় রাখার ব্যাপারে কাজ করারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

বুধবার দেশটির প্রেসিডেন্টের প্রাসাদে থেকে টেলিভিশনে সম্প্রচারিত বক্তব্যে হারিরি জানান, ‘আজকে আমি প্রেসিডেন্টের কাছে পদত্যাগের বিষয়টি উত্থাপন করেছি এবং তিনি এ ব্যাপারে আরও বিস্তারিত আলোচনার জন্য অপেক্ষা করতে বলেছেন। … আমি তার কথায় সম্মত হয়েছি।’

তিনি আরও জানান, ‘আমাদের ঐক্য জোরদার করার ব্যাপারে পুনরায় আলোচনা আশা করি এবং আমাদের অভ্যন্দরীণ কোন্দলও মিটে যাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী। এছাড়া আমাদের আরব ভাইদের সঙ্গে সম্পর্ক কেমন হবে সেটাও ঠিক করা হবে।’

‘এই সময়ে এসে, আসন্ন সকল চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার সামর্থ লেবাননের থাকতে হবে। লেবাননকে সর্বোচ্চ কোনো স্থানে নিয়ে যাওয়ার জন্য সকল রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সত্যিকারের অংশীদারিত্ব স্থাপনের ব্যাপারে আজ আমি ভাবছি।’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

লেবাননের রাজধানী বেইরুতে প্রেসিডেন্ট মাইকেল আউনের সঙ্গে একান্তে আলাপচারিতার পর জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এ ধরনের কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি।

এর আগে লেবাননের অনেক নেতাকে সঙ্গে নিয়ে প্রেসিডেন্ট আউন দেশটির বার্ষিক সামরিক প্যারেডে অংশ নেন। দেশটির ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ওই প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়।

সৌদি আরবে থেকে আকস্মিকভাবে আল আরাবিয়্যা টেলিভিশনে দেয়া বক্তব্যে পদত্যাগের ঘোষণা দেয়ার দুই সপ্তাহ পর দেশে ফেরেন হারিরি।

হারিরির পদত্যাগের ঘোষণার পর সৌদি আরবকে দোষারোপ করেছিল লেবাননের নেতাকর্মীরা। প্রেসিডেন্ট মাইকেল আউনের দাবিও ছিল, হারিরিকে চাপে ফেলে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়েছে। তবে সেসব দাবি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন হারিরি।

লেবাননের কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, কেবল দেশে ফিরে পদত্যাগ করলেই তা গ্রহণ করা হবে।