hasina

ধীনতা যুদ্ধের সময় সশস্ত্র বাহিনী, পুলিশ, আনসারসহ বিভিন্ন বাহিনীতে কর্মরত মুক্তিযোদ্ধাদের ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে ভাতা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) সশস্ত্র দিবস উপলক্ষে ঢাকা সেনানিবাসের আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা/তাদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা ও সৌজন্য সাক্ষাৎ এবং সশস্ত্র বাহিনীর শান্তিকালীন সেনা/নৌ/বিমান বাহিনী পদক ও অসামান্য সেবা পদকপ্রাপ্ত সদস্যদের পদক প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, সশস্ত্র বাহিনী, পুলিশ, আনসারসহ বিভিন্ন বাহিনীতে যারা কর্মরত ছিলেন, চাকরি করার কারণে তাদের তখন ভাতা দেওয়া হয়নি। তাদের বেশি ভাগই বা প্রায় সবাই এখন অবসরে। তাদের পরিবার আছে, অনেকে কষ্টে আছেন।

বাহিনীতে কর্মরত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যারা বিভিন্ন বাহিনীতে কর্মরত ছিলেন ও মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন তাদের এবং তাদের পরিবারকে ভাতা দেবো। ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে তাদের ভাতা দেওয়া হবে।

ভাতা বৃদ্ধি, চাকরিতে কোটাসহ মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে নেওয়া বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, অনেক ত্যাগের মধ্যে দিয়ে আমাদের স্বাধীনতা। যারা মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছে, অবদান রেখেছে আমাদের সীমিত সামর্থ্য দিয়ে তাদের সম্মানিত করার চেষ্টা করছি।

১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহপরিবারে নিহত হওয়ার কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ১৫ আগস্টের কালো দিন যদি না আসতো তবে স্বাধীনতার ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতো।

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের গৌরবের ইতিহাস মুছে ফেলার চেষ্টা হয়েছে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইতিহাসক কখনো মুছে ফেলা যায় না। ইতিহাস ঠিক তার স্থান করে নেয়। এটা আরেকবার প্রমাণ হয় ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতা গ্রহণের পর। সেময় দেশে শুধু উন্নয়ন হয়েছে। এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হবে।