6

সরদার মজিবুর রহমান (গোপালগঞ্জ) ও সৈয়দ অরুপ হোসেন (গোপালগঞ্জ সদর):
গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তী পরীক্ষায় ডিভাইজসহ ধরা পড়া ৭ পরীক্ষার্থীর ২০ দিন করে সাজা প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। শুক্রবার সকাল ১০ টা থেকে ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের এ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে ইলেকট্রনিক ডিভাইজসহ ওই ৭ পরীক্ষার্থীকে আটক করা হয়। পরে তাদেরকে ভ্রাম্যমান আদালতে সোপর্দ করা হলে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রত্যেককে ২০ দিনের সাজা প্রদান করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
কারাদন্ডাদেশ প্রাপ্ত ভর্তি পরীক্ষার্থী হলেন বরিশাল উজিরপুরের আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে তানভীর, মাদারীপুর রাজৈরের শহিদুল হকের ছেলে পলাশ মাতুব্বর, যশোর জেলার বাঘারপাড়া আমুরিয়ার শামসুল হকের ছেলে জয় ইমামুল, ময়মনসিংহ গফরগাঁও এর মোঃ শাহজাহানের ছেলে ইকবাল, ঢাকা কেরানীগঞ্জের আব্দুল মালেকের ছেলে মোঃ কাওসার, কুড়িগ্রাম কাঠালবাড়ির আইয়ুব আলীর ছেলে উৎস, যশোর বাঘারপাড়ার মোঃ শন্তুর ছেলে সৌরভ,
পরীক্ষার হলে এসব পরীক্ষার্থীদের দেহ তল্লাসী করে ইলেকট্রনিক ডিভাইজ পাওয়া যায়। পরে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন তাদের ২০ দিনের কারাদন্ডাদেশ দেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসসহ গোপালগঞ্জ শহরের ৫টি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু পরিবেশে সম্পন্ন হওয়ায় তিনি সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।